অরুণিমা রিসোর্ট গলফ ক্লাব

অরুণিমা রিসোর্ট গলফ ক্লাব নড়াইল

অরুনিমা রিসোর্ট গলফ ক্লাব যা অরুনিমা ইকো রিসোর্ট নামেও পরিচিত। নড়াইল জেলার নারাগাতির পানিপাড়া গ্রামে এটি অবস্থিত। ৫০ একর জমি নিয়ে এর অবস্থান। ছোট বড় মোট ১৯টি পুকুর আছে এখানে। একটি বড় লেক আছে। এর মাঝে একটি কৃত্তিম দ্বীপ আছে। দ্বীপের মধ্যে রয়েছে রেস্টুরেন্ট, কটেজ ও কনফারেন্স রুম আছে। সময় কাটানের জন্য আছে গলফ, টেনিস, টেবিল টেনিস, দাবা, লুডু, ব্যাডমিন্টন, বাস্কেট বল প্রভৃতি খেলার ব্যবস্থা। বিনোদনের জন্য রয়েছে কয়েক প্রকারের নৌকা, ঘোড়ার গাড়ী প্রভৃতি। এছাড়াও পার্কের ভেতরে রয়েছে নিজস্ব ভ্যান ও রিক্সা। এই সব ভ্যান, রিক্সায় চড়েও অতিথিরা পার্কটি ঘুরে ঘুরে দেখতে পারবেন। লেকের পাড়ে বসার জন্য রয়েছে বেঞ্চ ও গাছে ঝোলানো দোলনা। লেকের উপর রয়েছে ৪টি বাঁশের সেতু আছে। টিকেট মূল্যঃ রিসোর্টে প্রবেশ করতে হলে ১০০ টাকা মূল্যের টিকিট প্রয়োজন হয়। যারা পিকনিক করতে যায় তাদের জন্য মাথাপিছু ৫০% ছাড় রয়েছে। যোগাযোগঃ ফোনঃ +৮৮ ০১৭১৬৪৩১২১০, +৮৮ ০১৭১১৬৯৩৭৮৮, +৮৮০২৯৮৭১৫২৭ হটলাইনঃ +৮৮ ০৭১১৪২২২০৩ ওয়েবসাইটঃ http://arunimaresort.com ইমেইলঃ arunimaresortgolfclub@gmail.com

Explore this Place Add to Wishlist
বাঁধা ঘাট

বাঁধা ঘাট নড়াইল

খুলনা বিভাগের নড়াইল জেলায় বাঁধা ঘাট অবস্থিত। নড়াইলের ঐতিহ্যবাহী জমিদারদের বাঁধানো ঘাট। ভারতের গঙ্গা নদীর উপরে একই আদলের একটি ঘাট রয়েছে। এটি ভিক্টোরিয়া কলেজ সংলগ্ন চিত্রানদীর পাড়ে অবস্থিত। তৎকালীন জমিদারদের নৌ-বিহারের জন্য ও নদীর তীরে বসে প্রাকৃতিক সৌন্দর্য উপভোগের জন্য ঘাটটি প্রতিষ্ঠা করা হয়। গ্রীক স্থাপত্যরীতিতে ডোরিক কলামের ওপর এর ছাউনিটি নির্মিত। এই ঘাটটি নড়াইলের জমিদার নির্মাণ করেছিলেন। জমিদারের বাসভবন এই ঘাটের কাছেই ছিল। জমিদার নির্মাণ করলেও স্থানীয়রা এটিকে রাজবাড়ি ঘাট নামে বলে থাকে। নড়াইলের জমিদার এই ঘাটে প্রায়ই বিকালবেলা সময় কাটাতেন।

Explore this Place Add to Wishlist
চিত্রা রিসোর্ট

চিত্রা রিসোর্ট নড়াইল

দক্ষিনবঙ্গের অন্যতম সুন্দর চিত্রা রিসোর্টটি খুলনা বিভাগের নড়াইল জেলায় বড় বাদুরার পরই চিত্রা নদীর তীরে অবস্থিত। শীতকালে এই রিসোর্টে প্রচুর পর্যটকের সমাগম ঘটে। এই রিসোর্টে রয়েছে বিনোদনের জন্য বিভিন্ন ধরনের রাইড এবং নানা আয়োজন। বনভোজন, অবকাশ যাপন কিংবা পারিবারিক ভ্রমণের জন্য চিত্রা রিসোর্ট একটি উপযুক্ত জায়গা। প্রায় সাত বিঘা জায়গাজুড়ে এ রিসোর্টে রয়েছে কটেজ, শিশুপার্ক এবং চিত্রা নদীতে নৌ-ভ্রমণের ব্যবস্থা। যোগাযোগ ওয়েবসাইটঃ http://chitraresort.com/ তরিকুল ইসলাম অনিক- ০১৭১৩০৬৩৬১০ (সত্ত্বাধিকারী) গৌতম - ০১৯১৭৮৯৮৬২৩ (ম্যানেজার)

Explore this Place Add to Wishlist
নিরিবিলি পিকনিক স্পট

নিরিবিলি পিকনিক স্পট নড়াইল

দক্ষিনবঙ্গের অন্যতম চমৎকার বিনোদন স্থান হল নিরিবিলি পিকনিক স্পট। এই পিকনিক স্পটটি গন্ডব গ্রাম থেকে ৫ কিলোমিটার দূরে নড়াইল জেলার লোহাগড়ায় অবস্থিত। শীতকালে এখানে অনেক মানুষ পিকনিক করতে আসেন। এখানে বিনোদনের জন্য রয়েছে বিভিন্ন রাইড এবং নানা আয়োজন। প্রায় ১৪ একর জমির উপর অবস্থিত পিকনিক স্পটটিতে পিকনিক আর পার্কিং এর ব্যাবস্থা ছাড়াও বিনোদনের জন্য রয়েছে অনেকগুলো দৃষ্টিনন্দন বাড়তি আয়োজন। এগুলোর মধ্যে মিনি চিড়িয়াখানা, মিনি মিউজিয়াম, রেস্টহাউজ, এস. এম. সুলতান আর্টগ্যালারী, কুঠিরশিল্প সামগ্রীর স্টলসহ নানা ধরনের আয়োজন।

Explore this Place Add to Wishlist
স্যার প্রফুল্ল চন্দ্র রায়ের বাড়ি

স্যার প্রফুল্ল চন্দ্র রায়ের বাড়ি খুলনা

স্যার প্রফুল্ল চন্দ্র রায়ের বাড়ি খুলনা জেলার পাইকগাছা উপজেলায় অবস্থিত বাংলাদেশের অন্যতম একটি প্রত্নতাত্ত্বিক স্থাপনা। এটি উপজেলার বাড়ুলী গ্রামে অবস্থিত। ২রা আগস্ট ১৮৬১ সালে বাংলাদেশী বিজ্ঞানী ও রসায়নবিদ আচার্য প্রফুল্ল চন্দ্র রায় এ বাড়িতেই জন্মগ্রহণ করেন। পরিত্যক্ত হওয়ার পর বাড়িটি বেশ কয়েকবার দখল হওয়ার পর বাংলাদেশ প্রত্নতত্ত্ব অধিদপ্তর এটিকে সংরক্ষিত পুরাকীর্তি হিসেবে ঘোষণা করে। এরপর থেকে বিজ্ঞানীর জন্ম ও মৃত্যুদিবসে এখানে সরকারি পৃষ্ঠপোষকতায় অনুষ্ঠান পালন করা হয়। বাড়িটির অবস্থান কপোতাক্ষ নদেরে তীরে অবস্থিত। বাড়িটির সামনেই রয়েছে পাথরে অঙ্কিত প্রফুল্ল চন্দ্র রায়ের একটি ছবি। এর একপাশে রয়েছে একটি পুকুর। মাঝখানে একটি ফাঁকা স্থানকে ঘিরে তৈরি করা হয়েছে পুরো বাড়িটির নকশা। দোতালা মূল ভবনের পাশেই রয়েছে ছোট মন্দির ও একতলা আরও কয়েকটি ভবন। প্রায় ১৭০টি স্তম্ভের উপর বসানো পুরো কমপ্লেক্সটিতে মোট ৪৫টি দরজা ও প্রায় ১৩০টি জানলা রয়েছে। মূল ভবনের ছাদের উপর রয়েছে একটি সিংহমূর্তি। বাড়িটির বিভিন্ন দেয়াল ও স্তম্ভে ফুল, লতা ও হরেক রকমের নকশা অঙ্কিত রয়েছে।

Explore this Place Add to Wishlist
তেরখাদা পদ্মবিল

তেরখাদা পদ্মবিল খুলনা

খুলনার নিকটবর্তী অপরূপ সুন্দর একটি স্থান পদ্মবিল। বছরের সেপ্টেম্বর অক্টোবর মাসে ফুলে ভরা থাকে এই বিল।

Explore this Place Add to Wishlist