ভাটিয়ারীর জাহাজ সামগ্রী চট্টগ্রাম

4 people checked in

স্বাধীনতা যুদ্ধের সময় কর্ণফুলি নদীতে ডুবে যাওয়া আল-আববাস নামের পাকিস্তানি নৌ-বাহিনীর একটি জাহাজ ১৯৭৪ সালে চট্টগ্রামের ভাটিয়ারীর সমুদ্রোপকূলে ভাঙ্গা হয়। তবে বিদেশ থেকে পরিত্যক্ত জাহাজ কিনে এনে বাণিজ্যিকভাবে ভাঙ্গার প্রক্রিয়াটি শুরু হয় ১৯৮০র দশকে। এর পর থেকে ধীরে ধীরে বাংলাদেশে এ শিল্পের প্রসার হতে থাকে। বর্তমানে বাংলাদেশের জাহাজভাঙ্গা শিল্প শীর্ষ স্থানে আছে। জাহাজ ভাঙ্গার এই শিল্পকে কেন্দ্র করে গড়ে উঠেছে ভাটিয়ারীর জাহাজ সামগ্রীর এই মার্কেট, এখানে পাওয়া যায় পুরনো জাহাজ থেকে সংগৃহীত আসবাব, স্যানিটারি পণ্য, ক্রোকারিজ সামগ্রী, নৌযানে ব্যবহূত পণ্য,পাইপ, তামা-পিতল, প্লাস্টিক, কাঠ, পুরনো ইঞ্জিন, কাচ, নাট বল্টু, জাহাজের পুরনো তেল, চেয়ার-টেবিলসহ হাজারো রকমের সামগ্রী। এডভেঞ্চার প্রিয় মানুষদের জন্য এখানে রয়েছে অনেক প্রয়োজনীয় কিছু জিনিস ,যেমন – ক্লাইম্বিং রোপ, ক্যারাবাইনার, বাইনোকুলার, মনোকুলার, লাইট, ফ্লেয়ার, গগলস, লাইফ জ্যাকেট,কম্পাস ইত্যাদি।

  • How to go কিভাবে যাবেন ঢাকা থেকে চট্রগ্রামগামী বাসে চড়ে সীতাকুণ্ড পার হয়ার পর ভাটিয়ারিতে নামলেই হাইওয়ের ২ পাশে এসব দোকান পাওয়া যাবে। চট্রগ্রাম নেমে লোকাল বাসে বা লেগুনাতেও আসা যায় ভাটিয়ারি।
  • Lodging কোথায় থাকবেন ব্যবস্থাঃভাটিয়ারি তে ২-৩ টি থাকার হোটেল রয়েছে। তবে ভাটিয়ারির এই জায়গা ঘুরতে চাইলে চট্রগ্রাম থেকে ঘুরে গেলে ভাল হয়। কারন চট্রগ্রামে অসংখ্য বিভিন্ন মানের আবাসিক হোটেল আছে।
  • Foods কি খাবেন N/A
  • Must see অব্যশ্যই দেখবেন সন্দ্বীপ, কুমিরা ঘাট, খৈয়াছড়া ঝর্না, সীতাকুণ্ড ইকো পার্ক, কাট্টলী বিচ, পতেংগা, নেভাল একাডেমী, চন্দ্রনাথ মন্দির ।

Reviews

(Rate here)

Articles

Find on the Map