বিবি বেগনি মসজিদ বাগেরহাট

people checked in

বিবি বেগনি মসজিদ বাগেরহাটের ষাট গম্বুজ মসজিদ এর পশ্চিমে সিকি মাইলেরও কম দূরত্বে ঘোড়াদিঘির পাড়ে অবস্থিত একটি বৃহদাকার এক গম্বুজবিশিষ্ট মসজিদ। স্থানীয়ভাবে এটি বিবি বেগনি মসজিদ নামে পরিচিত। বাংলাদেশের প্রত্নতত্ত্ব অধিদপ্তর কর্তৃক মসজিদটি ব্যাপক সংস্কারসহ মসজিদের মূল পরিকল্পনার আদলে পুনঃনির্মিত হয়েছে। এই মসজিদের নির্মান সম্বন্ধে সঠিক ইতিহাস আজও জানা যায়নি। হয়তো বিবি বেগনি নামে একজন নারী কর্তৃক নির্মিত, যাঁর পরিচয় সুনির্দিষ্টভাবে জানা যায় নি। স্থানীয় একটি জনশ্রুতি মতে, তিনি ছিলেন খান জাহানের পত্নীদের একজন। মতান্তরে, তিনি ছিলেন খান জাহানের উপপত্নী অথবা একজন ঘনিষ্ট অনুসারী এবং তাঁর কবরের উপরই খান জাহান ইমারতটি নির্মাণ করিয়েছিলেন। তবে ইমারতের অভ্যন্তরে এখনও কোন খনন কাজ হয় নি বলেই ইমারতটির অভ্যন্তরে কোন কবরফলক বা কবরের চিহ্ন আছে কিনা তা বলা যাবে না। অবশ্য ইমারতটিতে এখনও তিনটি মিহরাব কুলুঙ্গি রয়েছে, যা মসজিদ স্থাপত্যে ভিন্ন তাৎপর্য বহন করে। বর্তমানে এটি মসজিদ হিসেবে সুপরিচিত এবং মসজিদ হিসেবেই ব্যবহৃত হচ্ছে। ইমারতটিতে খান জাহানের সময়কার স্থাপত্যরীতির ছাপও সুস্পষ্ট। কাজেই এটি সম্ভবত পনেরো শতকের মধ্যভাগে নির্মিত হয়েছিল। বিবি বেগনি মসজিদটি ইটের তৈরি। এর চার কোণে চারটি মিনার রয়েছে। পূর্ব দেয়ালে তিনটি এবং উত্তর ও দক্ষিণ দেয়ালে একটি করে খিলানাকার প্রবেশপথ রয়েছে। কিবলা দেয়ালের ভেতর দিকে রয়েছে অর্ধবৃত্তাকার খিলানযুক্ত তিনটি মিহরাব। ইমারতের বর্গাকৃতি হলঘরটি একটি বৃহৎ গোলার্ধ আকৃতির ইটের গম্বুজ দ্বারা আচ্ছাদিত। বর্তমানে মিহরাব, খিলানপথ ও চার কোণের মিনারে টেরাকোটা অলঙ্করণের অতি সামান্যই অবশিষ্ট আছে। এর মধ্যে রয়েছে লজেন্স ও শিকল নকশা, গোলাপ, পাঁপড়িযুক্ত পুষ্প এবং অলঙ্কৃত খাঁজকাটা খিলান।

  • How to go কিভাবে যাবেন ষাটগম্বুজ মসজিদ থেকে অটো/রিকশায় করে এই মসজিদে যেতে পারবেন। বাগেরহাট শহর থেকে ব্যাটারিচালিত অটোরিকশায় করে সহজেই বিবি বেগনীর মসজিদে আসতে পারবেন।
  • Lodging কোথায় থাকবেন থাকার জন্য বাগেরহাট শহরে মোটামুটি মানের বেশ কিছু হোটেল রয়েছে, যার ভাড়া ৩০০ থেকে ৮০০ টাকার মধ্যে। পর্যটন করপোরেশন ও বিভিন্ন বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের রেস্ট হাউসে খরচ কিছুটা বেশি।
  • Foods কি খাবেন N/A
  • Must see অব্যশ্যই দেখবেন N/A

Reviews

(Rate here)

Articles

Find on the Map