খানজাহান আলি সেতু বা রূপসা ব্রিজ খুলনা

3 people checked in

খানজাহান আলী সেতু (ইংরেজি: Khan Jahan Ali Bridge); রূপসা নদীর উপর নির্মিত একটি সেতু। এটি রূপসা ব্রিজ নামেও পরিচিত। খুলনা শহরের রূপসা থেকে ব্রিজের দূরত্ব ৪.৮০ কি.মি। এই সেতুকে খুলনা শহরের প্রবেশদ্বার বলা যায় কারণ এই সেতু খুলনার সঙ্গে দক্ষিণাঞ্চলের জেলাগুলির বিশেষত মংলা সমুদ্র বন্দরের সঙ্গে সড়ক যোগাযোগ স্থাপিত হয়েছে। সেতুটির দৈর্ঘ্য প্রায় ১.৬০ কি.মি.। বাগেরহাটের সাথে সযোগকারী এই সেতু এই শহরের অন্যতম প্রধান যাত্রাপথ; হাইওয়ে ও লোকাল উভয় ক্ষেত্রে। মোটরবিহীন যান ও পদচারীদের জন্য আলাদা নিরাপদ লেন রয়েছে।জাপানী সহায়তায় নির্মিত সেতুটির ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন করেন তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবং উদ্বোধন করেন খালেদা জিয়া। এই সেতুর ‍বিশেষ বৈশিষ্ট্য হলো দুই প্রান্তে দুটি করে মোট চারটি সিড়ি রয়েছে যার সাহায্যে মূল সেতুতে উঠা যায়। প্রতিদিন প্রচুর দর্শনার্থী সেতুটি পরিদর্শন করতে আসেন।

  • How to go কিভাবে যাবেন ঢাকা থেকে খুলনাঃ আকাশপথেঃ ঢাকা থেকে বিমানে করে যশোর বিমানবন্দরে যাবেন। যশোর থেকে বাসে করে খুলনা যাবেন। নদী পথেঃ রকেট স্টীমার বা জাহাজ বাঙ্গালি/মধুমতি তে করে মোড়লগঞ্জ বা হুলারহাট এ গিয়ে বাসে যেতে পারবেন । অথবা ঢাকা থেকে হুলারহাট ( পিরোজপুর ) এর লঞ্চ ছাড়ে এগুলোতে হুলারহাট নেমে বাসে খুলনা যেতে পারেন। বাসে করেঃ ঢাকা থেকে বাসে করে খুলনা দু’ভাবে যাওয়া যায়। আরিচা দিয়ে ঢাকা টু পাটুরিয়া পদ্মানদী ঘাট পাড় হয়ে ফরিদপুর মাগুরা যশোর হয়ে খুলনা অথবা ঢাকা টু মাওয়া ঘাট পাড় হয়ে ফরিদপুরের ভাঙ্গা থানা হয়ে গোপালগঞ্জের উপর দিয়ে বাগেরহাট হয়ে খুলনা। ঢাকার সায়দাবাদ থেকে প্রতিদিন সকাল ৬ টা থেকে রাত ১০ টা পর্যন্ত অনেকগুলো বাস ছেড়ে যায়, যেমন- ফাল্গুনি, হানিফ পরিবহন । ফাল্গুনি পরিবহনের ভাড়া ৪০০, এসি ৭০০। আরিচা দিয়ে যেতে চাইলে সোহাগ পরিবহনে যাওয়া যাবে, এছাড়া গাবতলি থেকে শাকুড়া, ঈগল সহ কয়েকটি বাস যায়। আর গুলিস্তান থেকে যেতে চাইলে টুংগি পাড়া পরিবহন রয়েছে। ট্রেনে করেঃ ঢাকা থেকে প্রতিদিন সুন্দরবন এবং চিত্রা ট্রেন খুলনার উদ্দ্যেশে ছেড়ে যায়। নআন্ত:নগর চিত্রা এক্সপ্রেস রাত ৭তায় ঢাকা থেকে ছাড়ে। খুলনা থেকে রূপসা ব্রিজঃ খুলনা শহরের যে কোন স্থান থেকে বাস, মাহিন্দ্রা, রিকশা বা ব্যাটারি অটোতে চড়ে রূপসা সেতু। অটো তে যেতে মাত্র ১৫ টাকা ভাড়া |
  • Lodging কোথায় থাকবেন • হোটেল সিটি ইন যোগাযোগঃ ০১৭১১-২৯৮৫০১ • সিএসএস রেস্ট হাউজ যোগাযোগঃ ০৪১-৭২২৩৫৫ • হোটেল ক্যাসেল সালাম যোগাযোগঃ ০৪১-৭৩০৭২৫ • হোটেল রয়্যাল ইন্টারন্যাশনাল যোগাযোগঃ ০৪১-৮১৩০৬৭-৯ • প্ল্যাটিনাম জুট মিলস লিমিটেড রেস্ট হাউজ যোগাযোগঃ ০৪১-৭৬২৩৩৫ এছাড়াও আছে হোটেল মিলিনিয়াম, হোটেল টাইগার গার্ডেন, হোটেল জ্যালিকো, হোটেল ওয়েস্টার্ন ইন, হোটেল অ্যাম্বাসেডর, হোটেল টাইটা, হোটেল প্যাসিফিক।
  • Foods কি খাবেন রূপসা ব্রিজে ঘোরা শেষে বেজেরডাঙ্গা মুসলিম হোটেলে ভাত,গরু (১১০ টাকা), জিরো পয়েন্টে কামরুল হোটেলে ভাত,গরু অথবা চুকনগর আব্বাসের হোটেলে খেতে পারেন। এছাড়াও খুলনা শহরে বিখ্যাত খাবারের মধ্যে রয়েছে জিরো পয়েন্টের চুইঝাল এর গরুর মাংস, রয়েল হোটেলের ফালুদা, আড়ংঘাটা বাইপাসের মাছের কাবাব, আড়ংঘাটা বাইপাসের জামিলের মাছের কাবাব।
  • Must see অব্যশ্যই দেখবেন হাদিস পার্ক(শহরের ভিতরে), খুলনা ভার্সিটি(১৫টাকা অটোতে), বিএল কলেজ(১৫ টাকা মাহেন্দ্রতে), কুয়েট(২০টাকা মাহেন্দ্রতে) এছাড়াও বাসে করে ষাট গম্বুজ মসজিদ ও হযরত খান জাহান আলীর মাজার যেতে পারেন, দক্ষিণডিহি যেতে পারেন (রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের শ্বশুর বাড়ী)

Reviews

(Rate here)

Articles

Find on the Map